মে ২৭, ২০২৪

সোমবার ২৭ মে, ২০২৪

হজ করতে সৌদির ভিসা পাননি ৪৪ হাজার যাত্রী, ফ্লাইট নিয়ে শঙ্কা

হজ করতে সৌদির ভিসা পাননি ৪৪ হাজার যাত্রী, ফ্লাইট নিয়ে শঙ্কা
হজ করতে সৌদির ভিসা পাননি ৪৪ হাজার যাত্রী, ফ্লাইট নিয়ে শঙ্কা। ছবি: সংগৃহীত

বাড়ি ভাড়াসহ মোয়াল্লেমসহ সৌদি আরবের দেওয়া বিভিন্ন শর্ত পূরণ করতে না পারায় এখনো ভিসা পাননি ৪৪ হাজার ২৬৮ হজযাত্রী।

হজ অফিস ও হজ এজেন্সি মালিকদের সংগঠন হাবের কয়েক কর্মকর্তা এসব তথ্য জানান।

হজযাত্রীদের ভিসা পাওয়ার ক্ষেত্রে হজ এজেন্সির জন্য সৌদি আরবের কিছু শর্ত আছে। এর মধ্যে রয়েছে– সৌদি আরবে হজযাত্রীদের জন্য বাড়ি ভাড়া, ফ্লাইটের টিকিট, প্রবেশ ও বাইর হওয়ার রুট এবং আসা-যাওয়ার তারিখ নিশ্চিত করা। তবেই সৌদি দূতাবাস ভিসা দেয়। সংশ্লিষ্টরা জানান, কিছু হজ এজেন্সি মালিক এখনও সৌদি আরবের শর্তগুলো পূরণ করতে না পারায় ভিসা পাননি এসব হজযাত্রী।

সৌদি সরকারের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী তওফিক আল-রাবিয়াহ দ্রুততম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশি হজযাত্রীদের ভিসা সম্পন্ন করার জন্য ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খানকে বার্তা পাঠিয়েছেন। এরপর হজ এজেন্সিগুলোকে দ্রুত হাজীদের ভিসা করানোর জন্য তাগিদ দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

এদিকে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বেঁধে দেওয়া শর্ত অনুযায়ী, সরকারি ব্যবস্থাপনার ৩০ শতাংশ হজযাত্রীকে বিমানের ফ্লাইটে প্রথমে মদিনায় নিতে হবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত সরকারি ব্যবস্থাপনায় একজন হজযাত্রীকেও মদিনায় পাঠানোর ব্যবস্থা নেয়নি ধর্ম মন্ত্রণালয়। তবে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের মধ্যে ৮ হাজার হজযাত্রী মদিনায় পৌঁছেছেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, হজযাত্রীদের ভিসা ধীরগতির কারণে হজ ফ্লাইট নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছে। প্রায়ই খালি সিট নিয়ে ছাড়তে হচ্ছে বিমানের ফ্লাইট। হজযাত্রী সংকটে এরই মধ্যে বাতিল হয়েছে বেশ কয়েকটি ফ্লাইট। ফলে শেষ মুহূর্তে হজযাত্রী পরিবহন নিয়ে চাপ বাড়বে। এতে শেষ সময়ে অনিশ্চয়তার মুখে পড়তে পারেন বেশ কিছু হজযাত্রী। এমন আশঙ্কার কথা জানিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

এ বছর ১ লাখ ২২ হাজার ২২১ জন বাংলাদেশি হজ পালন করতে যাবেন। গতকাল পর্যন্ত ৭৮ হাজার ২৯০ জন হজযাত্রীর ভিসা হয়েছে বলে জানান আশকোনা হজ অফিসের পরিচালক সাইফুল ইসলাম।

সৌদি আরবে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ২৭ জুন পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হতে পারে। হজ ফ্লাইট শুরু হয়েছে ২১ মে। শেষ হজ ফ্লাইট আগামী ২২ জুন। হজযাত্রীদের প্রথম ফিরতি ফ্লাইট ২ জুলাই আর শেষ ফিরতি ফ্লাইট ২ আগস্ট।