মে ২৩, ২০২৪

বৃহস্পতিবার ২৩ মে, ২০২৪

সারাদেশে প্রথম ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যারা

Ballot box
ফাইল ছবি

শেষ হল ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে দেশের ১৩৯টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ। গতকাল বুধবার (৮ মে) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা চলে এই ভোটগ্রহণ। এরপর শুরু হয় গণনা। গণনা শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফল ঘোষিত হতে থাকে।  

১৩৯টি উপজেলায় ঘোষিত ফলাফলে বিজয়ী হলেন যারা-

কুমিল্লা: কুমিল্লার তিন উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা নির্বাচিত হয়েছেন।

বিজয়ীরা হলেন- মেঘনা উপজেলায় নির্বাচিত হয়েছেন আনারস প্রতীকের প্রার্থী তাজুল ইসলাম তাজ। তিনি পেয়েছেন ১৮ হাজার ৭০০ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদের চশমা প্রতীকের প্রার্থী আবুল কালাম পেয়েছেন ১৮ হাজার ৩০৯ ভোট।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে হাঁস প্রতীকের প্রার্থী দিলারা শিরিন পেয়েছেন ২০ হাজার ৩৫০। তিনি বিএনপির সমর্থিত প্রার্থী বলে জানা গেছে।

লাকসাম উপজেলায় আনারস প্রতীকের প্রার্থী ইউনুস ভূঁইয়া নির্বাচিত হয়েছে। তিনি পেয়েছেন ৮১ হাজার ৩৯৫ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে মহব্বাত আলী তালা প্রতীকে পেয়েছেন ৮৯ হাজার ৬৫১ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পদ্মফুল প্রতীকের পড়শী সাহা ৮৪ হাজার ৩৪২ ভোট পেয়েছেন।

মনোহরগঞ্জ উপজেলায় নির্বাচিত হয়েছেন আব্দুল মান্নান। তিনি ঘোড়া প্রতীকে ৭০ হাজার ৩৪৮ পেয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে তালা প্রতীকের আমিরুল ইসলাম ৭৯ হাজার ৬৮৭ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রজাপতি প্রতীকের প্রার্থী শিরিন আক্তার ৭৫ হাজার ৪৫১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে।

নোয়াখালী: নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন নোয়াখালী-৪ (সদর ও সুবর্ণচর) আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরীর ছেলে আতাহার ইশরাক সাবাব চৌধুরী। তিনি পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৬৪৮ ভোট। ৬১টি কেন্দ্রের ফলাফলে সাবাব চৌধুরী ৭০৩ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী।

চাঁদপুর: চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলা বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান পদে (দোয়াত-কলম) নির্বাচিত হয়েছেন অধ্যাপক সিরাজুল মোস্তফা তালকুদার (আওয়ামী লীগ)। তিনি পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯১০ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সৈয়দ মনজুর হোসেন (আনারস) পেয়েছেন ১৬ হাজার ১১৬ ভোট। ভাইস-চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন শওকত হোসেন বাদল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নাজমা আক্তার আঁখি।

মতলব উত্তরে মোহাম্মদ মানিক (ঘোড়া) ৩৩ হাজার ৭০৭ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন (আওয়ামী লীগ)। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীকে মুক্তার হোসেন পেয়েছেন ২০ হাজার ৯২ ভোট। ভাইস-চেয়ারম্যান পদে রিয়াজউদ্দিন রিয়াজ আর মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন লাভলী চৌধুরী।

চাঁদপুরের মতলব উত্তরে মোহাম্মদ মানিক (বামে) ও মতলব দক্ষিণ উপজেলায় অধ্যাপক সিরাজুল মোস্তফা তালকুদার বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন।

ফেনী: ফেনীর ফুলগাজী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২৭,৬৩৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন কাপ-পিরিচ মার্কার প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হারুন মজুমদার।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১১,০৮৯ ভোট পেয়ে টিয়া পাখি মার্কার প্রার্থী আমজাদ হাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অনিল বনিক তৃতীয় বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মঞ্জুরা আজিজ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

পাবনা: পাবনার সুজানগর উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোটরসাইকেল প্রতীকের আব্দুল ওহাব। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহিনুজ্জামান শাহিন।

কক্সবাজার: কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে হেভিওয়েট প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানকে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আবছার। নুরুল আবছার পেয়েছেন ৩৪৯৭৪ ভোট। তিনি কক্সবাজার পৌরসভার চারবারের টানা চেয়ারম্যান (মেয়রের আগের পদ) ছিলেন।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন ভোটের মাঠে নতুন মুখ অধ্যাপিকা রোমেনা আকতার। তিনি পেয়েছেন ৩৬,৫৪২ ভোট।

অন্যদিকে এ উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন রশিদ মিয়া।

মহেশখালী উপজেলায় চেয়ারম্যান হয়েছেন দোয়াত কলম প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন। তিনি পেয়েছেন ৩৮১২৯ ভোট।

ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আবু ছালেহ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হয়েছেন মনোয়ারা কাজল।

কুতুবদীয়ায় ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হানিফ বিন কাশেম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৭৩৯৪ ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে জামায়াতে ইসলামির আকবর খান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ নেত্রী হাসিনা আকতার বিউটি নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন।

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সবকটি কেন্দ্রের বেসরকারি ফলাফল পাওয়া গেছে। এতে চেয়ারম্যান পদে জেলা জাতীয় পার্টির (জাপা) সহ-সভাপতি মাকসুদ হোসেন আনারস প্রতীকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। বুধবার রাতে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা কাজী মো. ইস্তাফিজুল হক আকন্দ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, মাকসুদ হোসেন আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ২৯ হাজার ৮৭৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ও মহানগর বিএনপির বহিষ্কৃত সহ-সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল চিংড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ১৫ হাজার ৬৫৩। অপর প্রার্থী বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ রশিদ দোয়াত-কলম প্রতীকে পেয়েছেন ১২ হাজার ৬০৮ ভোট।

মেহেরপুর: মেহেরপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৪০ হাজার ৯২৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আনারুল ইসলাম। তার নির্বাচনী প্রতীক ছিল মোটরসাইকেল। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম শাহীন কাপ পিরিচ প্রতীকে পেয়েছেন ১০ হাজার ৫০৭ ভোট।

মুজিবনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আনারস প্রতীকে ১৭ হাজার ৬৩ ভোট পেয়ে আমাম হোসেন মিলু বেসরকারিভাবে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রফিকুল ইসলাম তোতা কাপ পিরিচ প্রতীকে পেয়েছেন ১৫ হাজার ১০০ ভোট।

বান্দরবান: বান্দরবান সদর উপজেলায় মোটরসাইকেল প্রতীকে মো. আব্দুল কুদ্দুছ (বহিষ্কৃত জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের উপদেষ্টা) ১৯ হাজার ১৪৪ ভোট পেয়ে বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। আলীকদম উপজেলায় দোয়াত-কলম প্রতীকের প্রার্থী মো. জামাল উদ্দিন (আওয়ামী লীগ) ৯ হাজার ৪৭০ ভোট পেয়ে বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় মো. আতাউর রহমান আতা (আনারস প্রতীক) ৬৭ হাজার ছয় ভোট পেয়ে বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবু আহাদ আল মামুন (মোটরসাইকেল প্রতীক) পেয়েছেন তিন হাজার ৪৮৬ ভোট। আর খোকসা উপজেলায় আল মাছুম মুর্শেদ শান্ত (ঘোড়া প্রতীক) ২৫ হাজার ১০১ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাবুল।

যশোর: যশোরের মণিরামপুর উপজেলায় ৫৯ হাজার ২৭৩ ভোট পেয়ে বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আমজাদ হোসেন লাভলু (আনারস প্রতীক)। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন (মোটরসাইকেল প্রতীক) পেয়েছেন ৫২ হাজার ৭১৮ ভোট। কেশবপুরে ১৮ হাজার ৪৬৪ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মফিজুর রহমান মফিজ (ঘোড়া প্রতীক)। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাসিমা সাদেক (শালিক প্রতীক) পেয়েছেন ১৪ হাজার ১৬ ভোট।

বরিশাল: বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলায় রাজিব আহম্মেদ তালুকদার (কাপ-পিরিচ) ৩৭ হাজার ৫৪৯ ভোট পেয়ে বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিশ্বাস মুতিউর রহমান (আনারস) পেয়েছেন ৩৫ হাজার ১৫৪ ভোট।

বগুড়া: সারিয়াকান্দিতে এমপিপুত্র সাখাওয়াত হোসেন সজল (প্রতীক: আনারস), সোনাতলায় এমপির ছোট ভাই ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মিনহাদুজ্জামান লীটন (প্রতীক:আনারস) এবং গাবতলীতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটির সদস্য অরুণ কান্তি রায় সিটন (প্রতীক: ঘোড়া) নির্বাচিত হয়েছেন।

আনারস প্রতীকে অ্যাডভোকেট মিনহাদুজ্জামান লীটন ২০ হাজার ৪৮৩ ভোট পেয়ে পুণরায় নির্বাচিত হয়েছেন।  নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে যুবলীগ নেতা ফিদা হাসান টিটু এর আগে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেত্রী ওয়াছিয়া আকতার লুনা নির্বাচিত হয়েছেন।

সারিয়াকান্দির চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীকে সাখাওয়াত হোসেন সজল ৩৭ হাজার ২৪৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।
গাবতলীর চেয়ারম্যান পদে ঘোড়া প্রতীকে অরুণ কান্তি রায় সিটন ৪১ হাজার ৬০৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

শরীয়তপুর: শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে একেএম ইসমাইল হক, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আলমগীর ফকির ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে রাজিয়া সুলতানা মনি বিজয়ী হয়েছেন।

ভেদরগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ওয়াছেল কবির গুলফাম, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আজাহারুল ইসলাম গাজী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে রোকসানা আনোয়ার বিজয়ী হয়েছেন।

সিরাজগঞ্জ: আনারস প্রতীকে ৪৭ হাজার ৮৯৭ ভোট পেয়ে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান হয়েছেন মো. রিয়াজ উদ্দিন।

কাজিপুর উপজেলার চেয়ারম্যান পদে আবার বিজয়ী হয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান সিরাজী। আনারস প্রতীকে তিনি পেয়েছেন ৪৫ হাজার ১৩১ ভোট।

বেলকুচি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন মোহাম্মাদ আমিনুল ইসলাম সরকার। তিনি দোয়াত কলম প্রতীকে পেয়েছেন ৫৪
হাজার ৮৪১ ভোট।

রাত সাড়ে ১১টার দিকে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শহীদুল ইসলাম বেসরকারিভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন খান আনারস প্রতীকে ৪২ হাজার ৪৩৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়া আজমিরীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান মো. আলাউদ্দিন মিয়া কাপ পিরিচ প্রতীকে ১৫ হাজার ১৮২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

রাঙামাটি: রাঙামাটি সদর উপজেলায় ১৪ হাজার ৮৮৫ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি সমর্থিত প্রার্থী অন্ন সাধন চাকমা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাডভোকেট বিপ্লব চাকমা পেয়েছেন ১০ হাজার ২৯ ভোট। এখানে ভাইস চেয়ারম্যান পদে পলাশ কুসুম চাকমা ও মহিলা-ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছে রীতা চাকমা। তারা দুজনই জনসংহতি সমিতি সমর্থিত।

গাজীপুর: গাজীপুর সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত ইজাদুর রহমান মিলন। কাপাসিয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন আমানত হোসেন খান। কালিগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন আমজাদ হোসেন স্বপন।

কিশোরগঞ্জ:  কিশোরগঞ্জে হোসেনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৪৯ হাজার ৫২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মোহাম্মদ সোহেল। এই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে মোহাম্মদ আল আমিন (টিউবওয়েল) প্রতীক নিয়ে ৩৭ হাজার ৫৪১ ভোট এবং ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে ছাবিয়া পারভীন জেনী প্রতীক নিয়ে ৪৯ হাজার ৫২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বেসরকারি ফলাফলে বিজয়ী হয়েছেন এমদাদুল হক জুটন। ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন ফজলুল হক বাচ্চু। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হয়েছেন শামসুন্নাহার আপেল। আনারস প্রতী নিয়ে চেয়ারম্যান পদে এমদাদুল হক জুটন পেয়েছেন ২৮ হাজার ৭৩৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ২৭ হাজার ৭৯১ ভোট।

মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলা নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন মোঃ মনসুর আহমেদ খান জিন্নাহ। ৪৪ হাজার ৫৩৫ ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মোঃ আমিরুল ইসলামকে পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছেন।

মাগুরা: মাগুরা সদর উপজেলায় ৮৩ হাজার ৫৭১ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রানা আমির ওসমান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক শেখ রেজাউল ইসলাম পেয়েছেন ৫০ হাজার ৮৬৩ ভোট। শ্রীপুর উপজেলায় ৪৪ হাজার ৯৪৭ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা শরিয়তউল্লাহ মিয়া রাজন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দী শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোতাসিম বিল্লাহ সংগ্রাম ভোট পেয়েছেন ২৯ হাজার ২৮১।

জামালপুর: জামালপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন মোটরসাইকেল প্রতীক প্রার্থী বিজন কুমার চন্দ ৬৪ হাজার ৭৯৮ ভোট পেয়ে তিনি নির্বাচিত হয়েছেন।

সিলেট: ভোট গণনার পর রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার জিল্লুর রহমান বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।  ঘোষিত ফলাফলে সিলেট সদর উপজেলায় জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক, দক্ষিণ সুরমায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বদরুল ইসলাম, গোলাপগঞ্জে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুর কাদির শাফি এবং বিশ্বনাথ উপজেলায় জেলা বিএনপি সাবেক সহসভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. সুহেল আহমদ চৌধুরী বিজয়ী হয়েছেন।

কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক পেয়েছেন ২৩ হাজার ২৬৭ ভোট।

এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো. সাইফুল ইসলাম ১৮ হাজার ৬৪২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতীক উড়োজাহাজ।

আর মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোছা. হাসিনা আক্তার ফুটবল প্রতীকে ৩৫ হাজার ৭৯২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

টেলিফোন প্রতীক নিয়ে ২০ হাজার ৬১৫ ভোট পেয়ে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন মো. বদরুল ইসলাম। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো.মাহবুবুর রহমান ১৯ হাজার ৮৩০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতীক মাইক। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পদ্ম ফুল প্রতীকে ২০ হাজার ২৯৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আইরিন আক্তার কলি।

গোলাপগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মঞ্জুর কাদির শাফি ৩৭ হাজার ৭৮৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার প্রতীক দোয়াতকলম। ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো. নাবেদ হুসেন ২১ হাজার ৬৩০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতীক চশমা। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সেলিনা আক্তার শীলা ফুটবল প্রতীকে ৪৬ হাজার ৭৯৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যান পদে ১০ প্রার্থীর মধ্যে বিএনপি নেতা সুহেল আহমদ চৌধুরী জিতেছেন। কাপ পিরিচ প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ১৩ হাজার ৩২২ ভোট। আর ভাইস চেয়ারম্যান পদে মুজিবুর রহমান ছুইট ১৬ হাজার ৯৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতীক মাইক। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জিতেছেন মোছা. করিমা বেগম। কলস প্রতীকে তিনি পেয়েছেন ২৩ হাজার ৬৫৯ ভোট।