এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ১:৫৩ পূর্বাহ্ণ
এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ১:৫৩ পূর্বাহ্ণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কমিটি গঠন নিয়ে ছাত্রদলের ২ গ্রুপের সংঘর্ষ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কমিটি গঠন নিয়ে ছাত্রদলের ২ গ্রুপের সংঘর্ষ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কমিটি গঠন নিয়ে ছাত্রদলের ২ গ্রুপের সংঘর্ষ। ছবি: সংগৃহীত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলার কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে শহরের বাইপাস বিরাসার এলাকায় ছাত্রদলের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় অর্ধশত ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

সোমবার (১২ জুন) বেলা ১১টার দিকে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। থেমে থেমে অন্তত আধাঘণ্টা ধরে এই সংঘর্ষ চলে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গত ৮ জুন বৃহস্পতিবার জেলা ছাত্রদলেন নতুন আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এরপর বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির অর্থনীতি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন মাহাবুব শ্যামলের অনুসারী পদবঞ্চিত ছাত্রদলের একাংশের নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে বিএনপির অপর অংশের নেতা কবীর আহমেদ ভূঁইয়ার অনুসারীদের কান্দিপাড়াস্থ বাস ভবনে হামলা ও ভাঙচুর করে। এ নিয়ে গত দুদিন ধরে শহরের কান্দিপাড়ায় বিএনপির দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এর জের ধরে সোমবার (১২ জুন) সকালে ছাত্রদলের সদ্য ঘোষিত কমিটির নেতাকর্মীরা শহরতলীর বিরাসার মোড় থেকে আনন্দ মিছিল বের করে। মিছিলে জেলা কৃষকদলের আহ্বায়ক আবু শামীম আরিফ (ভিপি শামীম), স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন দিলীপ, ছাত্রদলের ঘোষিত কমিটির আহ্বায়ক শাহীনুর রহমা ও সদস্যসচিব সমীর চক্রবর্তীসহ বিভিন্ন উপজেলার বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে মিছিল শুরু হওয়ার আগমুহূর্তে ছাত্রদলের পদবঞ্চিত গ্রুপের সাবেক আহ্বায়ক ফুজায়েল চৌধুরীর নেতৃত্বে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা হঠাৎ করে রামদাসহ আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে অন্তত অর্ধশতাধিক ককটেল নিক্ষেপ করে। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া শুরু হয়। বিরাসার এবং খৈয়াসার এলাকায় প্রায় আধাঘণ্টা ধরে এই সংঘর্ষ। খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার রাতে শাহীনুর রহমানকে আহ্বায়ক ও সমীর চক্রবর্তীকে সদস্য সচিব করে পাঁচজনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে জেলা ছাত্রদলের আংশিক কমিটির অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয় ছাত্রদল।