এপ্রিল ১৫, ২০২৪ ১২:০৩ অপরাহ্ণ
এপ্রিল ১৫, ২০২৪ ১২:০৩ অপরাহ্ণ

বিদ্যালয়ের ক্লাসরুম পর্যটকদের কাছে ভাড়া দেয়ার অভিযোগ

Complaints about renting school classrooms to tourists
বিদ্যালয়ের ক্লাসরুম পর্যটকদের কাছে ভাড়া দেয়ার অভিযোগ। ছবি: সংগৃহীত

পটুয়াখালীর কুয়াকাটা পৌরসভার বঙ্গবন্ধু মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কক্ষ গেস্ট হাউস হিসেবে পর্যটকদের কাছে ভাড়াদেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ইতোমধ্যে স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্কুলটি পরিদর্শনে গিয়েও অভিযোগের সত্যতা পেয়েছেন। এ ঘটনায় বিষয়টি নিয়ে ওই বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। তারা এ ঘটনার জন্য প্রধান শিক্ষককে দায়ী করছেন।

সোমবার (১০ জুলাই) বিদ্যালয়ের সাবেক এক শিক্ষার্থী তার ফেসবুকে ছবিসহ একটি পোস্ট করলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেখানে উল্লেখ করা হয়, বিদ্যালয় ভবনের অভ্যন্তরে দুটি কক্ষ আবাসিক হোটেলের মতো নিয়মিত স্কুল কর্তৃপক্ষ পর্যটকদের কাছে ভাড়া দিয়ে আসছেন।

এদিকে বিদ্যালয়ের কক্ষ ভাড়া দেওয়ার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে চতুর্থ শ্রেণির এক কর্মচারীকে দায়ী করছেন প্রধান শিক্ষক। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের কথাও জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুয়াকাটা বঙ্গবন্ধু মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. খলিলুর রহমান বলেন, স্কুলের রুম ভাড়া দেওয়ার বিষয়ে আমি কিছু জানি না। গতকাল শুনেছি আমার স্কুলের দারোয়ান এটি ভাড়া দিয়েছেন। আমি স্কুলে গিয়ে সেই পর্যটকদের নামিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি আ. হাই নামের অভিযুক্ত ব্যক্তিকে শোকজ নোটিশ পাঠিয়েছি।

বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আ. বারেক মোল্লা বলেন, কক্ষ ভাড়া দেওয়া হয় না। তবে এমন ঘটনা ঘটে থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

অন্যদিকে কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরেজমিনে স্কুল পরিদর্শনে যান এবং তাৎক্ষণিক বিবি গেস্ট হাউসের সাইনবোর্ড খুলে ফেলেন তিনি। রুমের ভেতরে থাকা সমস্ত ফার্নিচার অপসারণ করে ওই গেস্ট হাউস বন্ধ করে দেন তিনি।

এ জেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. মুজিবুর রহমান জানান, স্কুলকে গেস্ট হাউস বা আবাসিক হোটেল বানানোর কোন আইনি বৈধতা নেই। এ বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে, তদন্তপূর্বক পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।