মে ২২, ২০২৪

বুধবার ২২ মে, ২০২৪

ফোর্বসের আন্ডার থার্টি তালিকায় বাংলাদেশি ৭ তরুণ

ফোর্বসের আন্ডার থার্টি তালিকায় বাংলাদেশি ৭ তরুণ
ফোর্বসের আন্ডার থার্টি তালিকায় বাংলাদেশি ৭ তরুণ। ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন সাময়িকী ফোর্বসের এশিয়ার ‘ফোর্বস ৩০ আন্ডার ৩০’ ক্যাটাগরিতে জায়গা করে নিয়েছেন সাত বাংলাদেশি। তবে এবারই প্রথম নয়, কয়েক বছর ধরেই বাংলাদেশি তরুণরা ধারাবাহিকভাবে এ তালিকায় স্থান করে নিচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার ফোর্বসের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে এ বছরের ৩০ বছরের কম বয়সি এশীয় তরুণদের তালিকা। মিডিয়া, মার্কেটিং ও বিজ্ঞাপন, সামাজিক প্রভাব ও কনজ্যুমার টেকনোলজিতে ক্যাটাগরিতে সাতজন বাংলাদেশি ‘থার্টি আন্ডার থার্টি এশিয়া’ লিস্টে আছেন। তারা হলেন- রুবাইয়াত ফারহান, তাসফিয়া তাসবিন, আজিজ আরমান, জাহ্নবী রহমান, আনওয়ার সায়েফ, সারাবান তহুরা ও দীপ্ত সাহা।

কনিজিউমার টেকনোলজিতে জায়গা করে নিয়েছেন আজিজ রহমান ও দীপ্ত সাহা। মিডিয়া, মার্কেটিং অ্যান্ড অ্যাডভারটাইজিং ক্যাটাগরিতে রুবাইয়াত ফারহান ও তাসফিয়া তাসবিন। সোশ্যাল ইমপ্যাক্টে জাহ্নবী রহমান, আনওয়ার সায়েফ এবং সারাবান তহুরা এ সম্মাননা অর্জন করেছেন।

আজিজ আরমানের প্রযুক্তির নাম যাত্রী। গত বছর তার প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবিত প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঢাকা বাস মালিক সমিতি ৫ হাজার ৬৫০টি বাসে ই-টিকেটিং সেবা চালু করে।

মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করা রিলাক্সির সহপ্রতিষ্ঠাতা জাহ্নবী রহমান ফোর্বসের তালিকায় অর্ন্তভূক্ত হয়েছেন। ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করে বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের কাছে মানসিক চিকিৎসা পৌঁছানের ক্ষেত্রে সংস্থাটি অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।

অ্যাগ্রোশিফট টেকনোলজিসের সহ প্রতিষ্ঠাতা দীপ্ত সাহার প্রযুক্তি কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি গ্রাহকের কাছে কৃষিপণ্য পৌঁছে দেওয়ার কাজ করে থাকে। সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ফসল এনে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি করে গত বছর চালু হওয়া প্রতিষ্ঠানটি।

সারাবন তহুরা তুরিন এবং আনোয়ার সায়েফ অনিকতা টার্টল ভেঞ্চার স্টুডিও-র প্রতিষ্ঠাতা। তাদের প্রতিষ্ঠিত এ প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানগুলোকে আর্থিক সহায়তা, পরামর্শ, বৈশ্বিক নেটওয়ার্কের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন এবং কৌশলগত সহায়তা প্রদান করে থাকে।

২০১৬ সাল থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত ২৫ জন বাংলাদেশি বিভিন্ন খাতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখায় ফোর্বসের এ তালিকায় জায়গা করে নিয়েছিলেন।