এপ্রিল ২০, ২০২৪ ১০:৪৪ অপরাহ্ণ
এপ্রিল ২০, ২০২৪ ১০:৪৪ অপরাহ্ণ

ক্ষতিগ্রস্তরা কমপ্লেক্সের ভেতর চৌকি বসিয়ে ব্যবসা করতে পারবেন: তাপস

ক্ষতিগ্রস্তরা কমপ্লেক্সের ভেতর চৌকি বসিয়ে ব্যবসা করতে পারবেন । ছবিঃ শাদমান আল আরবী/রাইজিং কুমিল্লা

আগামী বুধবার থেকে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা বঙ্গবাজার কমপ্লেক্সে চৌকি বসিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস।

রোববার (৯ এপ্রিল) বিকেলে নগর ভবনে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পর এ কথা জানান তিনি। আগামীকাল সোমবারের (১০ এপ্রিল) মধ্যে ভুক্তভোগীদের তালিকাও শেষ করা হয়ে যাবে।

ডিএসসিসি মেয়র আরো বলেন, “আমরা আগামীকাল সকাল থেকে বঙ্গবাজারের পোড়া স্তূপ পূর্ণোদ্যমে পরিস্কার কার্যক্রম শুরু করবো। যাতে করে আগামী ১-২ দিনের মধ্যে সেখানে ব্যবসা পরিচালনার পরিবেশ সৃষ্টি হয়। আমরা আশা করছি, আগামী মঙ্গলবারে না হলেও বুধবার থেকে যেন ব্যবসায়ীরা সেখানে চৌকি বিছিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এছাড়াও তাদেরকে পুনর্বাসনের জন্য সকল মহল থেকেই আমরা ইতিবাচক সাড়া পেয়েছি। এরই মাঝে ২ কোটি টাকা তহবিলে জমা হয়েছে। আগামী মঙ্গলবার সিটি করপোরেশনে সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে আমরাও সিদ্ধান্ত নেবো। আমরাও এই তহবিলে অংশগ্রহণ করবো।

বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘মেয়রের সঙ্গে কথা বলে আজ আমরা খুবই আনন্দিত। সিদ্ধান্তটি যে এত দ্রুত আসবে, সেটা আমরা কিন্তু বুঝি নাই।’

ঢাকা-৮ আসেনের সংসদ সদস্য ও ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও মার্কেট কমিটিগুলো ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসনের দায়িত্ব নিয়েছে। তহবিল যেটা হচ্ছে, সবাই আশাবাদী যে এটা একটা বড় আকার ধারণ করবে। আর প্রধানমন্ত্রী এর সাথে যখন যুক্ত হবেন তা সবার জন্যই একটি বড় ধরনের সহায়তা হবে বলে আমরা আশা করি।”

ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কিশোরগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য আফজাল হোসেন, ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান, বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির মহাসচিব মো. জহিরুল হক ভূঁইয়া প্রমুখ ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, এ সময় সমাজের সব স্তরের মানুষকে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসতে আহ্বান জানান শেখ ফজলে নূর তাপস। তিনি বলেন, আমরা সবার কাছে আবেদন করছি, মানবিক দিক বিবেচনা করে যাতে সবাই এগিয়ে আসে।