এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ২:৫২ পূর্বাহ্ণ
এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ২:৫২ পূর্বাহ্ণ

৬ ছাত্রীর চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ শিক্ষিকার বিরুদ্ধে!

Hair Cut
প্রতীকি ছবি/সংগৃহীত

স্কুলে হিজাব না পরায় ৭ম শ্রেণির ৬ শিক্ষার্থীর চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখান উপজেলার সৈয়দপুর আব্দুর রহমান স্কুল অ্যান্ড কলেজের রুনিয়া সরকার নামে এক শিক্ষিকার বিরুদ্ধে।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ক্লাস চলাকালীন এ ঘটনা ঘটে। সিরাজদিখান উপজেলা নিবাহী কমকর্তা সাব্বির আহমেদ রাত সাড়ে ১০টার দিকে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উপজেলা নিবাহী কমকর্তা বলেন, ‘বিষয়টি আমরা রাত ৯টার দিকে জানতে পারি। ঘটনাটি শুনে আমরা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষকে ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। যেহেতু শিক্ষক এনটিআরসিএ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত, আমরা তাদেরকেও এ বিষয়েও রিপোর্ট করব। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া জন্য।

এছাড়া, আমরা অধ্যক্ষকে নির্দেশ দিয়েছি শিক্ষার্থীদের জন্য ইতিবাচক পদক্ষেপ নিতে যাতে তারা সুষ্ঠুভাবে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারে।

এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো.মিজানুর রহমান ভুইয়া জানান,ঘটনাটি সত্য। চুল কাটার বিষয়টি ওই স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মিয়া ফরিদ আহমেদ স্বীকার করেছেন। আমি অভিযুক্ত শিক্ষিকার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেছিলাম তবে মোবাইল বন্ধ পাচ্ছি। বৃহস্পতিবার ওই শিক্ষিকাকে শোকজসহ সব ধরনের আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মিয়া ফরিদ আহমেদ বলেন, আমি শুনেছি, হিজাব না পরার জন্য শিক্ষিকা কাঁচি দিয়ে শিক্ষার্থীদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করেছেন। হয়ত তিনি শিক্ষার্থীদের সামান্য চুলও কেটেছেন। আমি আসলে নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। ঘটনাটি বিকেলে ঘটেছিল এবং স্কুল ছুটি হয়ে যাওয়ায় আমি সময়মতো ঘটনাটি জানতে পারিনি। এখনও পর্যন্ত কোনো শিক্ষার্থী বা অভিভাবক আমার কাছে অভিযোগ করেনি। তারপরও আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত রুনিয়া সরকারের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হলে বন্ধ পাওয়া যায়। মেসেজ পাঠানো হলেও তার কোন উত্তর পাওয়া যায়নি।