এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ৩:৩০ পূর্বাহ্ণ
এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ৩:৩০ পূর্বাহ্ণ

‘হাওয়া’ সিনেমার গান নিয়ে বিতর্ক, যা বললেন নির্মাতা

‘হাওয়া’ সিনেমার গান নিয়ে বিতর্ক, যা বললেন নির্মাতা
‘হাওয়া’ সিনেমার গান নিয়ে বিতর্ক, যা বললেন নির্মাতা। ছবি: সংগৃহীত

গত বছর মুক্তির পর ঝড় তোলে ‘হাওয়া’ সিনেমা। যদিও সেই ছবি কাঁটাতার পেরিয়ে এ পার বাংলাতেও সমান জনপ্রিয়তা পেয়েছে। গত বছর কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব ছিল তার জ্বলন্ত উদাহরণ।

সম্প্রতি ‘হাওয়া’ সিনেমার বিরুদ্ধে উঠেছে গুরুতর অভিযোগ। হাওয়া ছবির ‘সাদা সাদা কালা কালা’ থেকে ‘আটটা বাজে, দেরি করিস না’ সব কটি গানই লোকের মুখে মুখে ঘুরছে। এ বার ‘আটটা বাজে দেরি করিস না’ গান নিয়েই যত বিতর্ক। এই গানের স্রষ্টা হলেন বীরভূমের শিল্পী মনিরুদ্দিন আহমেদ। তাঁর লেখা এবং তাঁরই গাওয়া। যদিও ছবিতে তাঁকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি বলে দাবি করেছেন শিল্পী।

ভারতের একাধিক গণমাধ্যমের বরাতে জানা যায়, ‘আটটা বাজে, দেরি করিস না’ গানটির মূল গীতিকার ও সুরকার মনিরুদ্দিন আহমেদ। ওঁর লেখা অসংখ্য গান গেয়েছেন স্বপ্না চক্রবর্তী, আমিনুর রসিদ, কার্তিক দাস বাউল, বাসুদেব দাস বাউলের মতো শিল্পীরা। তিনি বীরভূম জেলা পঞ্চায়েত অফিসের কর্মী ছিলেন এক সময়। সিউড়ি লালকুঠি পাড়ার বাসিন্দা, বয়স প্রায় ৮১।

১৯৮৬ সালে মনিরুদ্দিন আহমেদ এই গানটি লেখেন। একটি ক্যাসেটও প্রকাশ করেন। তবে ‘হাওয়া’ ছবিতে নাম না থাকায় আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন শিল্পী।

এ প্রসঙ্গে হাওয়া সিনেমার নির্মাতা মেজবাউর রহমান সুমনের ভাষ্য, আমরা যে ইচ্ছাকৃতভাবে নাম দেইনি তা নয়। আমরা এই গানের গীতিকার ও সুরকারের নাম যে খুঁজিনি তাও নয়। আপনি অবাক হবেন জেনে যে আমরা বছরের পর বছর এই গানের গীতিকার-সুরকারকে খুঁজেছি।

তিনি আরও বলেন, এখন যেহেতু নতুন করে অভিযোগ উঠেছে তাই যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত শিল্পীর নাম সংযোজন করার আশ্বাসও দেন নির্মাতা। তিনি বলেন, ‘যিনি বা যারা দাবি তুলেছেন আমরা যোগাযোগ করব তাদের সঙ্গে। গানের প্রকৃত গীতিকার-সুরকার পাওয়া গেলে অবশ্যই তার নাম সংযোজন করব।’