জুন ১৬, ২০২৪

রবিবার ১৬ জুন, ২০২৪

ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত হল কুমিল্লা

Landless and homeless
আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় গৃহহীনদের এমনই ঘর বানিয়ে দিচ্ছে সরকার। ছবি: সংগৃহীত

সারাদেশে মানুষকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত করার অংশ হিসেবে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের অধীনে ৫ম পর্যায়ের দ্বিতীয় ধাপে আরও ১৮ হাজার ৫৬৬টি ভূমি-গৃহহীন সুবিধাবঞ্চিত পরিবার পেল জমি ও ঘর। এরই অংশ হিসেবে পুরোপুরি গৃহহীন-ভূমিহীনমুক্ত হল কুমিল্লা জেলা।

আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঈদুল আজহার আগে উপহার হিসাবে ১৮৫৬৬টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমি ও ঘর হস্তান্তর করেন।

সরকারি সূত্রে জানা যায়, এবারের পর্যায়ে ঢাকা, কুমিল্লা, ফেনী, গোপালগঞ্জ, শরিয়তপুর, ফরিদপুর, নেত্রকোণা, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর নোয়াখালী, গাইবান্ধা, লালমনিরহাট, নীলফামারী, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, সাতক্ষীরা, যশোর, খুলনা, নড়াইল, বাগেরহাট, বরগুনা, বরিশাল, হবিগঞ্জও সুনামগঞ্জ-জেলার সকল উপজেলাসহ মোট ৭০টি উপজেলা গৃহহীন-ভূমিহীনমুক্ত হয়েছে।

আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের অধীনে ৫ম পর্যায়ের ২য় ধাপে সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষজন এসব ঘর-জমি পেয়েছেন।

এর আগে কুমিল্লা জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন, কুমিল্লা জেলার আদর্শ সদর উপজেলার ৩২টি, সদর দক্ষিণ উপজেলার ১২টি, দেবিদ্বার উপজেলার ২৮টি এবং মুরাদনগর উপজেলার ১১৪টি ঘর উদ্বোধন করা হবে।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এবিএম সরওয়ার-ই-আলম জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত অশ্রয়ণ প্রকল্প এবং অন্যান্য কার্যক্রম দ্বারা গৃহ প্রদানের মাধ্যমে ৪৩ লাখ ৪০ হাজার ভূমিহীন-গৃহহীন মানুষ পুনর্বাসিত হয়েছেন। এরমধ্যে শুধু আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে পুনর্বাসিত হয়েছেন ২৯ লাখ ১০ হাজার ২৬৫ জন মানুষ। শুধু মুজিববর্ষের বিশেষ কর্মসূচির দ্বারা পুনর্বাসিত হয়েছেন ১৩ লাখ ৩০ হাজার ৬০ জন ছিন্নমূল মানুষ। তাদের জন্য বানানো হয়েছে ২ লাখ ৬৬ হাজার ১২টি ঘর।