মে ২৩, ২০২৪

বৃহস্পতিবার ২৩ মে, ২০২৪

বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের বন্ধ: বাড়ি যাওয়ার বাসে ট্যুরে যাচ্ছেন কুবি শিক্ষার্থীরা

University closed indefinitely, Cumilla University students are going on a tour on the bus going home
ছবি: কুবি প্রতিনিধি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) চলমান সংকট নিরসনের লক্ষ্যে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস ও আবাসিক হল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন।

গত মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৩ তম জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন। এরপর শিক্ষার্থীদের বাড়ি ফেরার জন্য বাসের ব্যবস্থা করেছে কতৃপক্ষ। তবে এই বাসে বাড়ি না ফিরে ট্যুরে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (২ মে) সকালে ক্যাম্পাস থেকে রংপুর, রাজশাহী, সিলেট, ভাঙ্গা, নোয়াখালী ও ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় ৭টি বাস।

সরেজমিনে দেখা যায়, সিলেটের বাসে করে ঘুরতে গিয়েছেন বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ৪৫ জন শিক্ষার্থী।

এরপর সিলেটে যাদের বাড়ি তাদের যাওয়ার জন্য আরেকটা বাসের ব্যবস্থা করেন প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) কাজী ওমর সিদ্দিকী।

সিলেটে ট্যুরে যাচ্ছেন মার্কেটিং ১৩ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আরিফুল ইসলাম। তিনি বলেন, আমরা একটি বাসের সবাই ট্যুরে যাচ্ছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আমাদের বাড়ি ফেরার জন্য বাস দিয়েছে আমরা এর প্রতিবাদ জানিয়ে বাড়ি না গিয়ে ট্যুরে যাচ্ছি। ট্যুর থেকে আবার ক্যাম্পাসে ফিরে যাব।

জহিরুল ইসলাম পলাশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই ছাত্রছাত্রীদের ট্যুরের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য। তাই বলে এটা ভাববেন না যে পোলাপান মনে হয় আর আন্দোলন করবে না। যদি এটা ভেবে থাকেন তাহলে আপনি বোকার স্বর্গে আছেন। ইনশাআল্লাহ শনিবার ব্যাক করছি। রবিবার আবার দেখা হচ্ছে।

সাদিয়া আকতার নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, প্রশাসন কৃচ্ছতা সাধনের নামে বৃহস্পতিবার বাস বন্ধ রেখেছে। এখন কিভাবে বিভিন্ন বিভাগে বাস পাঠাচ্ছে? প্রশাসন শিক্ষকদের দাবি না মেনে উল্টো শিক্ষার্থীদের হল ছাড়তে বলেছে। তাদের বাড়ি ফেরার জন্য বাস দিচ্ছে। এটা কি কোন সমাধান হতে পারে?

পদার্থ বিজ্ঞান ১৫তম ব্যাচের শিক্ষার্থী প্রমা বিশ্বাস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলেন, চলো না ঘুরে আসি সিলেট থেকে। যেখানে বাসের মধ্যে এতো সিট আছে। ধন্যবাদ মাননীয় এভাবে ফ্রী তে বিনোদন এবং একটা মিনি ট্যুরের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য।

এ ব্যাপারে জানতে পরিবহন প্রশাসক অধ্যাপক ড. স্বপন চন্দ্র মজুমদারকে একাধিকবার মুঠোফোন কল দেওয়া হলেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।