জুন ১৬, ২০২৪

রবিবার ১৬ জুন, ২০২৪

‘বন্ধু’ লায়লার মামলায় কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার টিকটকার প্রিন্স মামুন

Tiktoker Prince Mamun arrested from Cumilla in Laila case
ছবি: সংগৃহীত

‘বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের’ অভিযোগে বান্ধবী লায়লা আক্তার ফারহাদের (৪৮) মামলায় আলোচিত টিকটকার প্রিন্স মামুনকে (২৫) কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১০ জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে কুমিল্লার দাউদকান্দি মডেল থানা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। রাত সাড়ে ১২টার দিকে গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেন, মামুনের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ক্যান্টনমেন্ট থানায় একটি ধর্ষণ মামলা আছে। সেই মামলায় তাকে গ্রেপ্তারের জন্য ওই থানা থেকে একটি রিকুইজিশন পাঠানো হয়। মামুন চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় ফিরছেন, এমন তথ্য পেয়ে দাউদকান্দি টোল প্লাজায় গাড়ি তল্লাশি করে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। রাত সোয়া ১২টার দিকে তাকে ক্যান্টনমেন্ট থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এর আগে রোববার বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগে প্রিন্স মামুনের বিরুদ্ধে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় একটি মামলা করেন লায়লা।

লায়লার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, মামলার বিবাদী আব্দুল্লাহ আল মামুন ওরফে প্রিন্স মামুনের সঙ্গে তিন বছর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আমার পরিচয় হয়। পরিচয়ের একপর্যায়ে মামুন তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করেন। মামুন তাকে বিয়ে করবেন বলে জানান। তার কথা সরল মনে বিশ্বাস করে তাকে বাসায় থাকার অনুমতি দেয়া হয়।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, ‌‘২০২২ সালের ৭ জানুয়ারি মামুন তার মাকে সঙ্গে নিয়ে আমার বাসায় এসে বসবাস করতে থাকেন। ওইদিন থেকে আমার বাসায় আমার সঙ্গে একই রুমে থাকতে শুরু করেন। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার শারীরিক সর্ম্পক করেন। মামুন আমার বাসায় থাকার সময় তার বাবা-মা মাঝেমধ্যেই সেখানে এসে অবস্থান করতেন। আমি মামুনকে একাধিকবার বিয়ের বিষয়ে বললে বিভিন্ন অজুহাতে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন। এ বছরের ১৪ মার্চ মামুন আবারও ধর্ষণ করেন। পরে বিয়ের বিষয়ে তাকে বললে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। আমাকে বিভিন্ন অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন।’