জুন ১৯, ২০২৪

বুধবার ১৯ জুন, ২০২৪

ডেন্টালে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা

ডেন্টালে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা
ডেন্টালে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা। ছবি: সংগৃহীত

আগামী ৫ মে অনুষ্ঠিত হবে দেশের সরকারি-বেসরকারি ডেন্টাল কলেজের (বিডিএস) ২০২২-২৩ সেশনের প্রথমবর্ষ ভর্তি পরীক্ষা। বিডিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের প্রতি বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা দিয়েছে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর।

সোমবার (১ মে) অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা) ডা. মুজতাহিদ মুহাম্মদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনাসমূহ:

১. আগামী ৫ মে অনুষ্ঠিতব্য বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র, এইচএসসি-সমমান পরীক্ষার প্রবেশপত্র, রেজিষ্ট্রেশন কার্ড ও রিফিল দেখা যায়, এমন কালো কালির বলপয়েন্ট কলম নিয়ে নির্ধারিত পরীক্ষা কেন্দ্রে সকাল সাড়ে ৯টার পূর্বেই প্রবেশ করতে হবে। সাড়ে ৯টার পর কোনো পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না।

২. পরীক্ষার হলে মোবাইল ফোন, ক্যালকুলেটর, হাতঘড়ি, পকেটঘড়ি বা অন্য কোনো ধরনের ডিজিটাল ডিভাইস ও গেজেট নিয়ে প্রবেশ করা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ। পরীক্ষার হলে কোনো পরীক্ষার্থীর কাছে উল্লিখিত ডিভাইস পাওয়া গেলে অথবা কাউকে এ ধরনের কোন ডিভাইস ব্যবহার করতে দেখা গেলে তার উত্তরপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে।

৩. উত্তর প্রদান করার আগে পরীক্ষার্থীকে প্রশ্নপত্রের সাথে সংযুক্ত উত্তরপত্র (OMR Sheet) টি নিজ দায়িত্বে সাবধানতার সাথে আলাদা করে নিতে হবে এবং উত্তরপত্রে উল্লেখিত নির্দেশাবলি প্রতিপালন করতে হবে।

৪. প্রবেশপত্র অনুযায়ী উত্তরপত্রের নির্দিষ্ট স্থানে স্বাক্ষর প্রদান করতে হবে এবং স্পষ্টভাবে নাম লিখতে হবে। উত্তরপত্রের নির্দিষ্ট বৃত্তসমূহ ভরাট করা এবং নির্দেশিত স্থানে যথাযথ তথ্য প্রদান ব্যতীত অন্য কোন স্থানে কিছু লিখা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ এবং লিখলে উত্তরপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে।

৫. কোন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে দুই কান ঢেকে রাখতে পারবেন না। হল পরিদর্শকগণ উত্তরপত্রে স্বাক্ষর প্রদানের সময় সনাক্তকরণের জন্য প্রয়োজনে পরীক্ষার্থীর মুখমণ্ডলের আবরণ খোলার নির্দেশনা দিতে পারবেন।

৬. পরীক্ষার্থীকে অসুদপায় অবলম্বন অথবা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে অথবা অন্যের সাহায্য নিতে অথবা অন্যকে সাহায্য করতে দেখা গেলে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষার্থীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং তার উত্তরপত্র বাতিল করা হবে।

৭. পরীক্ষার্থীকে হল পরিদর্শকের নির্দেশ ও সিদ্ধান্ত মেনে চলতে হবে। পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত এবং হল পরিদর্শকের অনুমতি ব্যতীত পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষা কক্ষ ত্যাগ করতে দেওয়া হবে না।

সাধারণ নির্দেশনা

বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত রাজধানী ঢাকার পাঁচটি কেন্দ্রসহ দেশের ১২টি কেন্দ্রের অধীনে ১৬টি ভেন্যুতে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে। কেন্দ্রের মূল ফটক সকাল ৮টা থেকে ৯টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা থাকবে।

১. পরীক্ষা ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালনের পরিচয়পত্র ছাড়া কেউ পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে না।

২. ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে নেওয়ার লক্ষ্যে সরকার সজাগ রয়েছেন। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তৎপর রয়েছে। পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের যাতায়াত সহজ করার লক্ষ্যে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ ও পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ভেন্যুর চতুর্দিকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সংশ্লিষ্ট ভিজিলেন্স টিমের পেট্রোল নিশ্চিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

৩. ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে ৪ মে থেকে ৫ মে পর্যন্ত পরীক্ষা কেন্দ্র ও ভেন্যুগুলোর নিকটবর্তী দোকানগুলোর ফটোকপি মেশিন বন্ধ থাকবে।

৪. দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পরীক্ষার্থীদের নির্বিঘ্নে ও শান্তিপূর্ণভাবে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার লক্ষ্যে পরীক্ষার দিন পরীক্ষা কেন্দ্র ও ভেন্যুতে অহেতুক ও বিনা প্রয়োজনে ভিড় করা থেকে বিরত থাকার জন্য অভিভাবকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

৫. বিডিএস ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার সুযোগ নেই। পরীক্ষার্থীদেরকে গুজবে বিশ্বাস না করে ও প্রতারণার জালে পা না দিয়ে নিবিড়ভাবে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করে নিজ যোগ্যতা প্রদর্শনের জন্য উপদেশ দেওয়া যাচ্ছে।

৬. প্রতারকচক্রের অনৈতিক প্রলোভনে সাড়া না দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক করা যাচ্ছে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজব ছড়ালে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের আওতায় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

৭. ভর্তি সংক্রান্ত যেকোনো বিষয়ে ভর্তি কমিটির সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।

উল্লেখ্য, দেশের সরকারি ডেন্টাল কলেজ ও ইউনিটের (বিডিএস) ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির জন্য ৩৭ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর। সরকারি ডেন্টাল কলেজ ও ডেন্টাল ইউনিটে মোট আসন রয়েছে ৫৪৫টি। সেই হিসাবে আবেদনের সংখ্যা অনুযায়ী এবার প্রতিটি আসনের বিপরীতে ৬৮ জন শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতা করবেন।