জুন ১৬, ২০২৪

রবিবার ১৬ জুন, ২০২৪

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়: গৌরব ও সাফল্যের ১৮ বছর

Comilla University Campus
ছবি: কুবি প্রতিনিধি

গৌরব, সাফল্য, সংকট ও অগ্রযাত্রার ১৮ বছর অতিক্রম করে ১৯ তম বর্ষে পদার্পণ করেছে আমার প্রাণের সবুজ ও নয়নাভিরাম বিদ্যাপীঠ লাল সবুজের ক্যাম্পাস কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতিবছর ২৮ মে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন করে আসছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ২০০৭ সালের ২৫মে ৪টি অনুষদের অধীনে ৭টি বিভাগে মাত্র ৩০০ শিক্ষার্থী ও ১৫ জন শিক্ষক নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়।

গৌরব ও সাফল্যের ১৮ বছরে ক্যাম্পাসের অনেক সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও দেশের উচ্চ শিক্ষা প্রসারে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় এক অভূতপূর্ব ভূমিকা পালন করে আসছে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় চলতি বছর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় বিশ্ববিদ্যালয় দিবসটি পালন করা সম্ভব হয় নি। যদিও প্রশাসন থেকে পরবর্তীতে একদিন নির্দিষ্ট তারিখে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস পালন করা হবে বলে জানানো হয়েছে। এদিকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সীমিত পরিসরে গতকাল মঙ্গলবার আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

১৮ বছরে নানা বাধা অতিক্রম করে বিশ্ববিদ্যালয়টি দেশে একটি ভালো অবস্থান তৈরি করেছে। ছোট্ট এই ক্যাম্পাসে প্রত্যেহ সবার সঙ্গে দেখা হওয়া একটা নতু্ন মাত্রা যোগ করে। শিক্ষক-শিক্ষার্থী সবার অংশগ্রহণে বর্তমান অবধি কুবি পৌঁছেছে সাফল্যের স্বর্ণসিঁড়িতে। নানামুখী ইতিবাচক পদক্ষেপ কুবি সুনাম কুঁড়িয়েছে দেশ তথা বিশ্বদরবারে। গবেষণায়ও প্রমাণিত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিষয়টি ইতিবাচকভাবে দেখেছেন।

Cumilla University
ছবি: কুবি প্রতিনিধি

যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন এসেছে, তাদের জন্য ভিন্নরকম অনুভূতি এই দিবসকে ঘিরে। তাদের মধ্যে নতুনত্বের ছাপ ফুঁটে উঠবে। যারা কয়েকটি বছর পার করেছে, তাদেরও কাছে বিষয়টি একটু ভিন্ন রকম। সেই নিয়মে এই বছরের বিশ্ববিদ্যালয় দিবসটি আমার জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকার কথা ছিল। কিন্তু তা সম্ভব হয়নি কারো পক্ষেই। অনার্সে এটাই শেষ বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ছিল আমার। লিখতে নিলে নানা স্মৃতি আর আবেগ চলে আসবে, কিন্তু লিখে শেষ করা যাবে না।

বন্ধুত্বের বাজারে এখানে, এখনো যাদের পেয়েছি, তারা জীবনের অনেক অংশজুড়ে। কথায় আছে, বন্ধুত্বের সম্পর্ক রক্তের সম্পর্কের চেয়েও বিশাল। সেই মিলনমেলা আজ ভোর থেকেই দেখতে পাচ্ছি। গতবছর বর্তমানদের পাশাপাশি অনেক প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা, যারা দেশের বিভিন্ন স্থানে নিজ নিজ পেশায় নিয়োজিত, শুনলাম ছুটি নিয়ে অনেকেই প্রিয় এই অঙ্গনে ছুটে এসেছিলেন। এভাবেই প্রাণের স্পন্দনে মুখরিত ছিল কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়। কিন্তু এ বছর কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় দিসবে সুনশান-নিস্তব্ধ ছিল পুরো ক্যাম্পাস।

বর্তমানে ৬টি অনুষদের অধীনে ১৯ টি বিভাগে শিক্ষার্থী রয়েছেন ৭ হাজার ১৪১ জন। শিক্ষার্থীদের পাঠদানে ২৬৫ শিক্ষক নিয়োজিত রয়েছেন। প্রতিটি শিক্ষার্থী নিজের জায়গা থেকে ভালো কিছু করার চেষ্টা করে এবং শিক্ষা, সংস্কৃতি ও খেলাধুলায় তাদের অবস্থান উপরের দিকে রাখার চেষ্টা করছে।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় আজ ১৯ বছরে পা রাখল। সুকান্ত ভট্টাচার্যের কবিতায় পড়েছিলাম, ১৮ বছর মানে না কোন বাঁধা, বয়সটি দুর্বার, মেনে নেয় না কোন সংকোচ। সঁপে নিজেকে শপথের কোলাহলে। কাজেই প্রত্যাশা, সব বাধা উপেক্ষা করে কুবি এগিয়ে যাবে স্বীয় মহিমায়। এই বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে যেন আমাদের শপথ হয় বিশ্ববিদ্যালয় হবে আধুনিক, থাকবে না কোনো সাম্প্রদায়িকতার বীজ।

লেখক: মোহাম্মদ রাজীব, শিক্ষার্থী, ইংরেজি বিভাগ, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা।