মে ২৪, ২০২৪

শুক্রবার ২৪ মে, ২০২৪

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্মকে হেয় প্রতিপন্ন করার অভিযোগ

Cumilla University student accused of denigrating Islam
ছবি: কুবি প্রতিনিধি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) সনাতন ধর্মাবলম্বী এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্মকে হেয় প্রতিপন্ন করার অভিযোগ উঠেছে।

অভিযুক্ত স্বপ্নীল মুখার্জি বিশ্ববিদ্যালয়ের সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ বাংলাদেশ এর বর্তমান কার্যনির্বাহী সংসদের প্রচার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ওই শিক্ষার্থী ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী।

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মুসলিম শিক্ষার্থীদের মধ্যে তীব্র প্রকাশ করেন এবং আজ বুধবার সকাল ১০ টায় বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে মানববন্ধনেরও আয়োজন করবেন বলে জানা গেছে। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোভার স্কাউটের সহচর পদ থেকে ওই শিক্ষার্থীকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত ওই শিক্ষার্থীর ফেসবুক পোস্ট গেঁটে দেখা যায়, গত ২০শে ফেব্রুয়ারি ছোটদের বর্ণমালা শেখার বইয়ের মধ্যে গিটারের ছবিসহ লিখা আছে গ-তে ‘গান বাজনা ভালো নই। সে লিখেন, ‘ছবি তো গিটারের, গান কীভাবে আসলো? ছবি কই আঁকছে। এটা তো রং করছে। আতশবাজি ফোঁটানোর সাথে রং তামাশার সম্পর্ক কী?’

পরবর্তীতে ইসলাম ধর্মাবলম্বী আসিফ আহমদ প্রতি উত্তরে কমেন্টে লিখেন, মহানবী (স.) ও ইসলাম ধর্মীয় যুদ্ধ নিয়ে কটাক্ষ করেছেন। পরে স্বপ্নীল ওই ব্যক্তিকে লেখেন , ‘হযরত যেখানে যেতো সেখানেই যুদ্ধ করত। বদর না ফদর আরো কত কি নাম আছে। এলাকার মানুষগুলোকে একটা দিনও শান্তি দেয় নি।’

সে আরও মন্তব্য করেন, ‘এ জন্যই মুসলিমদের সাথে কথা বলি না কারণ তাদের ব্রেইন নাই। আফগানিস্তান নিয়ে কথা বলতে বলতে হিন্দুধর্মের দেবতা টেনে নিয়ে এসে বলে টপিকের মাঝে থাকতে।’

এর আগেও স্বপ্নীলের বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্মকে নিয়ে বিভিন্ন কটুক্তি মূলক পোস্ট ও কমেন্ট করেছেন বলে অভিযোগ করেন কুবি শিক্ষার্থীরা। তারা বলছেন, প্রতিবার সে ক্ষমা চাইতেন। কিন্তু সে (স্বপ্নীল) বারবার ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করেছে। যা খুবই দুঃখজনক।

ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং বিভাগের সাইফুল ইসলাম বলেন, সে ফেসবুক পোষ্ট ও কমেন্টে যা লিখেছে সেখানে সরাসরি মহানবী (স.) ও ইসলাম ধর্মকে ব্যঙ্গ করা হয়েছে। এর আগেও সে ধর্ম নিয়ে এমন উস্কানিমূলক ও কটুক্তি করেছেন। একজন মুসলিম হিসেবে আমি এর প্রতিবাদ জানাই ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তার বহিষ্কার চাই। সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হবে।

তার এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে।

রোমান সরকার নামে একজন লিখেছেন, ‘সে দীর্ঘদিন ধরে বহুবার মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে আসছে। তার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি ও বহিষ্কার চাই।’

এদিকে তার বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্ম অবমাননার অভিযোগে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) রোভার স্কাউটস থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানান সিনিয়র রোভারমেট মো. তোফাজ্জল হোসেন।

এ বিষয়ে প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) কাজী ওমর সিদ্দিকী বলেন, আমি ফেসবুকে বিষয়টি দেখেছি। এটা যেহেতু ধর্মীয় ইস্যু আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে অবগত করে রেখেছি। যখন লিখিত অভিযোগ পাবো তখন তদন্ত করে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আমাদের কাছে এখনো লিখিত কোনো অভিযোগ আসেনি।

তবে আমরা আগামীকাল (বুধবার) প্রক্টরিয়াল বডি বসবো। তার বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত করা হবে। যদি সত্যতা প্রমাণিত হয়, তাহলে সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জানতে চাইলে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র মজুমদার বলেন, এ ব্যাপারে আমি অবগত না। তবে একজন শিক্ষার্থী হিসেবে সে ধর্ম অবমাননা করতে পারে না। তবে অবমাননার অভিযোগ প্রমাণিত হলে বিভাগ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয় না, প্রশাসন থেকে পদক্ষেপ নিবে।

সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে শাখার সাধারণ সম্পাদক শ্রী দ্বীপ চৌধুরী বলে, স্বপ্নীল খুবই নিন্দনীয় কাজ করেছে। একজন মহান ব্যক্তিকে নিয়ে সে এই ধরনের কথা বলতে পারে না। আমাদের সংগঠন মানুষকে নিন্দা করা সমর্থন করে না। তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে তা যদি সত্য প্রমাণিত হয় তাহলে আমাদের কেন্দ্রীয় সংগঠন থেকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ধর্মীয় অবমাননা কারণ জানতে তাকে একাধিক বার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।