এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ৩:১২ পূর্বাহ্ণ
এপ্রিল ২৪, ২০২৪ ৩:১২ পূর্বাহ্ণ

ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে অন্তরঙ্গ দৃশ্যে হাত-পা কাঁপছিল রণবীরের!

ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে অন্তরঙ্গ দৃশ্যে হাত-পা কাঁপছিল রণবীরের!
ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে অন্তরঙ্গ দৃশ্যে হাত-পা কাঁপছিল রণবীরের!। ছবি: সংগৃহীত

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা রণবীর কাপুর। প্রেমিক বলে বলিউডে কম সুনাম নেই তাঁর। বরং এক সময় বলিপাড়ায় কান পাতলেই যাঁর প্রেম জীবনের গুঞ্জন শোনা যেত। সম্প্রতি বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাটকে বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন রণবীর।

তবে, আলিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হওয়ার আগে পর্যন্ত নিজের প্রেম জীবনের জন্য একাধিক বিতর্কের সম্মুখীন হয়েছেন তিনি। সেই রণবীরই নাকি পর্দায় প্রেম করতে গিয়ে লজ্জায় লাল হয়ে গিয়েছিলেন! সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সে বিষয়ে খোলসা করলেন এ অভিনেতা নিজেই।

২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া কর্ণ জোহর পরিচালিত ছবি ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’-এ অভিনয় করেছিলেন রণবীর কাপুর। ওই ছবিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে ছিলেন ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনও। ছবির চিত্রনাট্য অনুযায়ী প্রেমিক যুগলের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন রণবীর ও ঐশ্বরিয়া। বেশ কিছু অন্তরঙ্গ দৃশ্যেও দেখা গিয়েছিল তাঁদের দু’জনকে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে রণবীর জানান, ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের অভিনয় করতে গিয়ে নাকি হাত-পা কাঁপছিল তাঁর। অভিনেতা বলেন, ‘‘আমি তো লজ্জায় মরে যাচ্ছি, আমার হাত-পা কাঁপছে। কখনও কখনও তো তাঁর গালে স্পর্শ করতে গিয়েও আমি অস্বস্তিতে পড়েছি।’’ তা হলে শেষ পর্যন্ত কোন ওষুধে সেরেছিল রণবীরের এই অসুখ?

রণবীর জানান, তাঁর অস্বস্তি দেখে সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছিলেন ঐশ্বরিয়া নিজেই। রণবীরকে কিন্তু-কিন্তু করতে দেখলেই ঐশ্বরিয়া বলতেন, ‘‘হয়েছেটা কী তোমার! আমরা অভিনয় করছি, ঠিক করে নিজের কাজটা করো।’’ পাশাপাশি নিজেকেও বোঝাতেন রণবীর। তাঁর কথায়, ‘‘জীবনে আর এ রকম সুযোগ পাব না, তাই এই সুযোগটাকেই কাজে লাগাতে হবে!’’

তবে নিজের কথার যাতে ভুল ব্যাখ্যা না হয়, সে দিকে নজর রেখে রণবীর বলেন, ‘‘ঐশ্বরিয়া ভীষণ ভাল এক জন শিল্পী, বড় মাপের অভিনেত্রী। পরিবার সূত্রেও আমার সঙ্গে তাঁর পরিচয় আছে। ঐশ্বরিয়া গোটা ভারতের অন্যতম প্রতিভাময়ী অভিনেত্রী। ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবিতে তিনি যে ভাবে আমাকে সাহায্য করেছেন, সে জন্য আমি চিরকৃতজ্ঞ।’’

২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবি যেমন নজর কেড়েছিল দর্শক ও অনুরাগীদের, তেমনই বক্স অফিসেও সাফল্য অর্জন করেছিল। ওই বছরের বাণিজ্যসফল ছবিগুলির মধ্যে অন্যতম ছিল ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’।