জুন ১৬, ২০২৪

রবিবার ১৬ জুন, ২০২৪

ঈদে ‘ডন’ রূপে আসছেন আসিফ আকবর

The Last Don By Asif Akbar
ঈদের দিন বিকেলে আসিফ আকবরের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত হবে গানটি | ছবি: পরিচালকের সৌজন্যে

এবার গানের সঙ্গে অন্য এক আসিফ আকবরকে দেখবেন ভক্তরা। নতুন গানের ভিডিও ‘দ্য লাস্ট ডন’ শিরোনামের একটি গান নিয়ে হাজির হচ্ছেন এই শিল্পী। এতে গান গাওয়ার পাশাপাশি ‘ডন’ চরিত্রে অভিনয়ও করেছেন তিনি।

গত শনিবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আসিফ লিখেছেন, ‘একজন গায়ক গান গায়, আনন্দের জীবন। তার চোখে ধরা পড়তে থাকে যাপিত জীবনের নিকৃষ্ট অংশগুলো। সে নিজেও সেই নোংরা সমাজের একটি অংশ। বিচারের বাণী কাঁদছে নিভৃতে, ডন আইন তুলে নেয় নিজের হাতে। শিশু ধর্ষণ ও পাচার, তাদের অঙ্গ কর্তন করে ভিক্ষাবৃত্তিতে বাধ্য করা এবং নারীপাচারসহ মানবপাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হিসেবে আমরা তৈরি করেছি ‘দ্য লাস্ট ডন’! গায়ক হিসেবে আমি সর্বোচ্চ ন্যায়বিচার চাইতে পারি কথা, সুরে ও গানে।’

আসিফের বিবরণে এটা স্পষ্ট যে, ডন হলেও অন্যায়ের প্রতিবাদকারী একটি চরিত্র রূপায়ণ করেছেন তিনি। গল্প ভাবনা তারই। সম্প্রতি ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে এর শুটিং হয়েছে। এটি নির্মাণ করেছেন সৈকত নাসির। আগামী ১৭ জুন ঈদের দিন বিকাল ৪টায় আসিফ আকবরের ইউটিউব চ্যানেলে অবমুক্ত হবে মিউজিক্যাল ফিল্ম ‘দ্য লাস্ট ডন’। গানটি লিখেছেন সুহৃদ সুফিয়ান। সঙ্গীত পরিচালনায় জাভেদ আহমেদ কিসলু।

এ গানের প্রসঙ্গে আসিফ বলেন, ‘এমন একটা গান এবং মিউজিক্যাল ফিল্মের ভাবনা ছিল অনেক আগে থেকে। অনেক দিন সময় নিয়ে পরিকল্পনা সাজিয়েছি। গানের মধ্যে মূল চরিত্রটি করেছি আমি। যথারীতি সিনেমার মতো অভিনয় করতে হয়েছে এখানে। এটি আমার জন্য ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা। দর্শক আমাকে একেবারেই নতুন রূপে দেখতে পাবেন। গানটি আমাদের সংগীতাঙ্গনে নতুন একটি ট্রেন্ড সৃষ্টি করবে।’

এ গানের প্রসঙ্গে নির্মাতা সৈকত নাসির বলেন, ‘এই কাজটার শুটিং পরিকল্পনা আর প্রস্তুতি মিলিয়ে প্রায় ছয় মাস লেগেছে। আসিফ ভাইয়ের পরামর্শ অনুযায়ীই সাজানো হয়েছে। তিনি অনেক দিন ধরে এমন প্রতিবাদী গল্পের গান নিয়ে ফিল্ম করার কথা ভাবছিলেন। তিনটা অ্যাকশন দৃশ্য রয়েছে। প্রতিটি দৃশ্য আসিফ ভাই নিজে করেছেন। সত্যি বলতে কি, কাজের প্রতি তাঁর ডেডিকেশন আমাকে আগেও মুগ্ধ করেছে, এবারও। আমরা আশা করছি, এই ঈদের আলোচিত একটি কাজ হতে যাচ্ছে এটি।’

২০১৭ সালে আসিফ আকবরকে মডেল হিসেবে তুলে ধরে তারই গাওয়া ‘আগুন’ গানের ভিডিও নির্মাণ করেন সৈকত নাসির। তার মতে, এটি ভিডিওর নতুন বাজার তৈরিতে সহায়ক হয়েছিল। নতুন মিউজিক্যাল ফিল্ম আরেকটি উদাহরণ স্থাপন করবে বলে তিনি আশাবাদী।