জুলাই ২৫, ২০২৪

বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই, ২০২৪

ইন্টার মিয়ামিতে ২০২৫ সাল পর্যন্ত খেলবেন মেসি

Messi will play at Inter Miami until 2025
ইন্টার মিয়ামিতে ২০২৫ সাল পর্যন্ত খেলবেন মেসি। ছবি: ফেসবুক

 ইন্টার মিয়ামির সাথে দুই বছরের চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। মেজর লিগ সকার (এমএলএস) দল শনিবার এই ঘোষনা দিয়ে জানিয়েছে ২০২৫ সাল পর্যন্ত মেসি মিয়ামির সাথে থাকছেন। 

গত বছর কাতার বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনাকে শিরোপা উপহার দিয়েছেন ৩৬ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার। আগামী শুক্রবার তাকে মিয়ামির জার্সি গায়ে মাঠে দেখা যাবে। এক বিবৃতিতে মেসি বলেছেন, ‘ইন্টার মিয়ামি ও যুক্তরাষ্ট্রে ক্যারিয়ারের নতুন এই যাত্রা শুরু করতে পেরে আমি দারুন  খুশী।’

সাতবারের ব্যালন ডি’অর বিজয়ী মেসির পিএসজি থেকে মিয়ামিতে আগমন ইতোমধ্যেই দারুন সাড়া ফেলেছে। মেসির মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের ঘরোয়া ফুটবলে ভিন্ন এক আমেজ ও আগ্রহ তৈরী হবে বলেই সংশ্লিষ্টদের মত। এমএলস ইস্টার্ন কনফারেন্স লিগে এই মুহূর্তে তলানিতে থাকা মিয়ামির ভাগ্য বার্সেলোনার সাবেক এই সুপারস্টারের হাত ধরে পুনর্জাগরণ হবে, এমনটাই প্রত্যাশা করছেন ক্লাব কর্তৃপক্ষ।

নতুন চুক্তিতে স্বাক্ষর করে মেসি বলেছেন, ‘এটা আমার জন্য চমৎকার একটি সুযোগ। সুন্দর এই প্রকল্পটিকে একসাথে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য সবাই চেষ্টা করবো। যে লক্ষ্য আমরা স্থির করেছি, একসাথে কাজ করার মাধ্যমে তা অর্জল করাই এখন মূল লক্ষ্য। আমার নতুন বাড়িতে সবাইকে সহযোগিতা করার জন্য মুখিয়ে আছি।’

শুক্রবার লিগ কাপে মেক্সিকার ক্লাব ক্রুস আজুলের বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে ইন্টার মিয়ামিতে মেসির অভিষেক হবার কথা রয়েছে। মেজর লিগ সকার ও মেক্সিকান লিগের শীর্ষ ক্লাবগুলোর মধ্যে এই প্রতিযোগিতাটির বেশ মর্যাদা রয়েছে।

ইংলিশ সাবেক তারকা ডেভিড বেকহ্যাম ইন্টার মিয়ামির মালিকানা কিনে নেবার পর মেসির এই চুক্তি ক্লাবকে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য সবচেয়ে বড় পদক্ষেপ। ২০০৭ সালে লস এ্যাঞ্জেলস গ্যালাক্সিতে খেলতে এসে মেজর লিগ সকারের সাথে সম্পৃক্ত হন বেকহ্যাম। ২০২০ সালে তার হাত ধরেই এমএলএস-এ মিয়ামির যাত্রা শুরু। এক বছর ধরে স্টেডিয়ামের জন্য জায়গা খুঁজে বের করার পর তিনি মিয়ামি গঠন করেন।

এক বিবৃতিতে বেকহ্যাম বলেছেন, ‘দশ বছর আগে নতুন দল হিসেবে মিয়ামি গঠনের যাত্রা শুরু করেছিলাম। তখনই আমি বলেছিলাম দুর্দান্ত এই শহরে আমি বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের আনতে চাই। এলএ গ্যালাক্সিতে যোগ দিয়ে আমি যেভাবে যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবলের অগ্রযাত্রায় ভূমিকা রেখেছিলাম, আমি চেয়েছি পরবর্তী প্রজন্ম সেই ধারা বজায় রাখুক। আজ আমার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। মেসির মত বিশ্ব সেরা একজন খেলোয়াড় এই ক্লাবে যোগ দিয়েছে, এর থেকে গর্বের আর কি হতে পারে। আমাদের রোমাঞ্চের পরবর্তী ধাপ এর মাধ্যমে শুরু হলো। মেসিকে মাঠে দেখার অপেক্ষা যেন শেষ হচ্ছেনা।’

ইন্টার মিয়ামির প্রধান কোচ জেরার্ডো মার্টিনো এর আগে ভিন্ন  ভিন্ন দুটি সময়ে মেসির সাথে কাজ করেছেন। ২০১৩-১৪ মৌসুমে মার্টিনোর অধীনে বার্সেলোনার হয়ে মেসি স্প্যানিশ সুপার কাপ জয় করেন। এরপর ২০১৪-২০১৬ সাল পর্যন্ত আর্জেন্টিনা জাতীয় দলেও কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন মার্টিনো।

২০২১ সালে কোপা আমেরিকা শিরোপা জয়ের মাধ্যমে মেসি প্রথমবারের মত অধিনায়ক হিসেবে আর্জেন্টিনাকে বড় কোন শিরোপা উপহার দিয়েছিলেন। এরপর তার হাত ধরে আসে বিশ্বকাপের শিরোপা। আর্জেন্টিনার হয়ে ১৭৫ আন্তর্জাতিক ম্যাচে মেসি রেকর্ড ১০৩ গোল করেছেন।

এমএলএস কমিশনার ডন গারবার বলেছেন, ‘আমরা সত্যিই দারুন  আনন্দিত। বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় ইন্টার মিয়ামি ও মেজর লিগ সকারকে বেছে নিয়েছে। তার সিদ্ধান্ত আমাদের লিগ ও উত্তর আমেরিকায় আমাদের খেলার পিছনে গতি ও শক্তির প্রমান।’
ইন্টার মিয়ামির আরেক মালিক জর্জ ম্যাস বলেছেন, ‘আমরা একটি উচ্চাভিলাষী ক্লাব গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম যা বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের আকৃষ্ট করবে। আজ মনে হচ্ছে সেই প্রতিশ্রুতি আমরা রক্ষা করতে পেরেছি। এজন্য সমর্থকদের অনেক ধন্যবাদ, তারা কখনই আমাদের ওপর থেকে আস্থা হারায়নি। সবাই মিলে আমরা একসাথে স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে যাবো।’

ইন্টার মিয়ামি স্পোর্টিং ডিরেক্টর ক্রিস হেন্ডারসন বলেছেন, ‘লিওনেল মেসির প্রতিভার কোন তুলনা হয়না। মাঠ এবং মাঠের বাইরে তিনি যা নিয়ে আসেন তা চারপাশের মানুষকে প্রভাবান্বিত করে।’

ক্যারিয়ারে এ পর্যন্ত মেসি যা অর্জন করেছে তার তুলনা কার্যত কোনভাবেই কারো সাথেই হয়না। বিশ্বকাপে দুইবার গোল্ডেন বল ট্রফি পেয়েছেন, তিনবার উয়েফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় ও ছয়বার লা লিগার সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে চারটি শিরোপা ছাড়াও অলিম্পিকে স্বর্ণ পদক, ১০ বার লা লিগার শিরোপা, দুইবার লিগ ওয়ান ও সাতটি কোপা ডেল রে শিরোপা জিতেছেন।

২০০৪-২০২১ সাল পর্যন্ত ক্যারিয়ারের দীর্ঘ সময় খেলেছেন বার্সেলোনায়। পিএসজিতে দুই বছরের মেয়াদে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় ৭৫টি ম্যাচে ৩২ গোল ও ৩৫টি এ্যাসিস্ট করেছেন।