মে ২৭, ২০২৪

সোমবার ২৭ মে, ২০২৪

আবারও বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক

আবারও বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক
আবারও বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক। ছবি: ট্রেভর ককলি/আলামি

ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্ক আবারও বিশ্বের সেরা ধনীদের তালিকার শীর্ষে ওঠে এসেছেন।

বুধবার (৩১ মে) মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

ফরাসি ধনকুবের বার্নার্ড আর্নল্টকে পেছনে ফেলে এই মুকুট পুনরুদ্ধার করেন তিনি। বুধবার (৩১ মে) এলভিএমএইচের ২ দশমিক ৬ শতাংশ দরপতন হলে আর্নল্টের ব্যক্তিগত সম্পত্তিতেও টান পড়ে। এর ফলে ধনীর তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে নেমে যান তিনি। শীর্ষে উঠে যান মাস্ক।

গত ডিসেম্বরে মাস্কের কাছ থেকেই শীর্ষ ধনীর মুকুট ছিনিয়ে নিয়েছিলেন ৭৪ বছর বয়সী আর্নল্ট। তবে এরপর থেকে বেশ কয়েকবার সম্পদের ব্যবধানে একে অপরকে ছাপিয়ে যান তারা।

আর্নল্ট ফরাসি ব্যবসায়িক গ্রুপ ‘মোয়েত হেনেসি- লুই ভুতন’ বা এলভিএমএইচের প্রধান নির্বাহী। ফ্যাশন, জুয়েলারি, অ্যালকোহলের বাজারে বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে পরিচিত কিছু বিলাসবহুল ব্র্যান্ডের মালিক এই এলভিএমএইচ। এগুলোর মধ্যে রয়েছে লুই ভুতন, ট্যাগ হিউর, সেফোরা, ডম পেরিগনন, ক্রিশ্চিয়ান ডিওর, ফেন্ডি, গিভেঞ্চি, মার্ক জ্যাকবস, স্টেলা ম্যাককার্টনি, লোওয়ে, লোরো পিয়ানা, কেনজো, সেলিন, সেফোরা, প্রিন্সেস ইয়টস, বুলগারি, টিফানি অ্যান্ড কোং প্রভৃতি।

বিপরীতে, মার্কিন ধনকুবের ইলন রিভ মাস্ক বৈদ্যুতিক গাড়িনির্মাতা টেসলার প্রতিষ্ঠাতা, রকেট কোম্পানি স্পেসএক্সের সিইও এবং প্রধান প্রকৌশলী। বোরিং কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা, নিউরালিংক এবং ওপেন এআইর সহপ্রতিষ্ঠাতাও তিনি। সম্প্রতি মাইক্রো-ব্লগিং সোশাল মিডিয়া হ্যান্ডেল টুইটার কিনে নেয়ার পর থেকে সেটিরও প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব সামলাচ্ছেন মাস্ক।

গত বছরের তুলনায় এ বছর এলভিএমএইচের শেয়ারের দাম ১৯ দশমিক ৭ শতাংশ বেড়েছে, আর ঠেসলার শেয়ারের দাম একই সময়ে বেড়েছে ৬৫ দশমিক ৬ শতাংশ।

বিশ্বব্যাপী মুদ্রাস্ফীতির কারণে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো সমস্যায় পড়লেও বিলাসী পণ্যে মানুষের আগ্রহ কমেনি। আরনল্টের প্রতিষ্ঠিত এলভিএমএইচের অধীনে বিলাসী কোম্পানির বেঁচা-বিক্রি ভালো থাকায় তার সম্পদও বেড়েছিল। কিন্তু অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ধীরগতি হওয়ায় এখন বিলাসী পণ্যের ওপর মানুষের আগ্রহ কমে যায়। বিশেষ করে চীনে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অনেকটাই কম।

অপরদিকে এ বছর এখন পর্যন্ত মাস্কের সম্পত্তির পরিমাণ বেড়েছে ৫৫ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলার। মূলত টেসলার কারণেই তার সম্পদ বেড়েছে।